কবিতা

ঈশানকোণ একটি সাহিত্যের ওয়েবজিন গ্রীষ্ম সংখ্যা মে ২০১৭ ইং 

দিশারী মুখোপাধ্যায়ের দু'টি কবিতা

ভালোকে বাসাবাসি কর 


তুই বারবার বলছিস ওপথে যেও না 

কেন যে বলছিস জানি না, জানতে চাইও না 

শুধু জেনে রাখ আপাতত আর কোন রাস্তা নেই এখানে 

অন্য যেগুলোকে রাস্তা ব'লে ভাবছিস 

সেগুলো আসলে মারাত্মক বিষধর সাপ মাত্র 

না, কোন ভয়ংকরকেই ভয় পাওয়ার বা স্যালুট করার লোক আমি নই 

কিন্তু একথা তো মানবি, মানুষের পাশে মানুষ না থাকলে 

বিশুদ্ধ পানীয় জলও লকলকিয়ে হ'য়ে ওঠে হেমলক 


এখন বন্ধু বন্ধুকে বলছে - কই চিনি না তো !

রাস্তা রাস্তাকে আড়াআড়ি কেটে বেরিয়ে যাচ্ছে মৃত্যুর বরফের স্ল্যাবে 

আর তার বন্ধু তখন পিকিনিকে হট্পটে ড্রিংকে আর নাচে 


বরং যে আমাকে মারতে চাইছে আমি তো তাকে জীবনদায়ী ভেবে 

নিজের শরীরে ইন্জেক্ট করবো না 

এইটুকু বুঝে ওঠার সুযোগ যে আমাকে দিয়েছে 

পৃথিবীর পলিউসনের জন্য তাকে অন্তত বিভীষণ বলা যাবে না 


সাবধানে থাকিস রাস্তাকে সঙ্গে নিয়ে 

আর সত্যিকারের ভালোবাসা দিয়ে তাকে বানিয়ে তুলিস ভালো বাসা 

ভালোবাসা কিন্তু বাজারে কিনতে পাওয়া যায় না 

সংগ্রহ করতে হয় পাথর ভেঙে


কুশল ইন্ডিয়া 


গাছগুলো দাঁড়িয়ে আছে বুকের কাছে 

বুকের ভেতর সব কুবেরের গুপ্তধনের মৌরি-গন্ধ 

হাওয়ার স্রোত হাওয়া হওয়ার জন্য নদীর কাছে ট্রেনিং নিচ্ছে 

গাছগুলো দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ভাবছে 

কাকে কবে কতটা তারা অক্সিজেন দেবে, কাকে দেবে ফল 


আকাশের ছোট ছোট তারাগুলো ভাবছে 

পৃথিবীর এত বড় বড় সব মানুষগুলো এতো ছোট হচ্ছে কী ক'রে 

কেনই বা বড় না হ'য়ে ছোট হবার এমন আকুল প্রয়াস 


পাখিরা ঠিক করেছে গাছের ডালে ব'সে ব'সে মানুষকে গান শোনাবে 

গান শুনতে শুনতে যদি কোনদিন মানুষগুলো আকাশ হ'তে পারে 

সেদিন তারা ঘর গেরস্থালির পুরো দায়িত্ব তাদের উপর নিশ্চিন্তে ছেড়ে দিয়ে 

ডানা দিয়ে আলপনা আঁকা শেখানোর জন্য একটা ইউনিভার্সিটি খুলবে


HOME

এই লেখাটা শেয়ার করুন