free web page builder

কবিতা            Home        
কাকলি গঙ্গোপাধ্যায়ের তিনটি কবিতা



ভাসান


কবে সেই কতকাল ধরে
ভেসে ভেসে
গাঙ ছেড়ে সমুদ্রে পড়েছ।
ভুলেছ ঘাটের পথ
বন্দরে বন্দরে এখন নতুন লখীন্দর
মণিহারি পসরা সাজায়। তোমারও কি সাধ ছিল কোনও?
লখার প্রাণহীন সঙ্গ বয়ে বয়ে
ভুলেছ কি জীবনহাটের রাঙা পথ—
সেখানে তোমার জন্য লাল শাড়ি, চুড়ি আর
কাঁচটিপ ছিল কোনোদিন ?


কোথায় শেকড় ছিল ভাসলি কোথায়
ভেলা আর বেহুলা --- শুধু ভেসে যায়। 
ভাসে দিন ভাসে রাত ঝড়ে কি তুফানে
বেহুলার বারোমাস্যা ভেলা শুধু জানে।
একই কালই দিয়া বিধি ভাগ্য কি লিখিলা
বেহুলাই ভেলা নাকি ভেলাই বেহুলা।


নিজস্ব

কিছু কিছু মানুষ আছে বলেই
শহরে এখন বকুল গন্ধ।
কোনও কোনও মন বাঁচে বলেই এখনও
ফাটলে বেয়াড়া ঘাসের সবুজ উঁকি
নিজস্ব ভালোবাসার কোনও
পেটেন্ট হয় না বলেই
আজও, যখন খুশি তোমায় ভাবি।


সুর

মিলছে না।
বাকি থেকে যাচ্ছে কোথাও কিছু মাত্রা
প্রত্যহই, প্রত্যেকেরই।
ওস্তাদেরা বলেন, বে-সুর নয়, কম সুর।
শুধু বোঝা মুশকিল কোথায় কতটুকু কম
এভাবে সুরের খোঁজে দিনকে উদাস রেখেও
মাঝে মাঝে জেগে উঠে মালকোষের রাত
গহীন প্রহরে জ্যোৎস্না মাখিয়ে মাখিয়ে
রঙিলী হয় পিলু। আর আমরা,
কমসুরেরা ভাবতে বসি, এমন হাসি
আমিও তো হেসেছি কোনোদিন।
স্বপ্নে ?

  
                                                  HOME

[এই লেখাটা শেয়ার করুন]